ড্রাইভিং করার জন্য এক জন ড্রাইভারের কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে অনেক সময় দক্ষ ড্রাইভারকেও বিপদে পড়তে হয়, হয়রানির শিকার হতে হয়। তবে এটি তৈরির প্রক্রিয়া খুব একটা সহজ নয়। অনেকে হয়তো জানেন না, এটি কোথা থেকে এবং কীভাবে পাওয়া যায়, কিংবা এটা তৈরির সঠিক প্রক্রিয়াটাই বা কী? অনেক সময় তারা প্রতারকের খপ্পরে পড়েন। তাই এই লেখাটি তাদের জন্য।

ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রকারভেদঃ

১) শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স

২) অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স

৩) পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স

৪) পি. এস. ভি. ড্রাইভিং লাইসেন্স

৫) ইনস্ট্রাকটর ড্রাইভিং লাইসেন্স।

পাঁচ প্রকার ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর মধ্যে শিক্ষানবিশ, অপেশাদার এবং পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স সর্বাধিক প্রচলিত। নিচে এসম্পর্কে বিস্তারিত আলোচমা করা হল।

যে সকল ব্যক্তি ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে অযোগ্যঃ

. চঞ্চল প্রকৃতির ব্যক্তি,

. স্নায়ুবিক রোগী,

. হৃদরোগী,

. রাতকনা,

. বর্নান্ধ ,

. শ্রবন প্রতিবন্ধী এবং

.  শারীরীক ভাবে অক্ষম ব্যক্তিগন।

যারা ড্রাইভিং লাইসেন্সএর জন্য আবেদন করতে পারবেনঃ

. সর্বনিম্ন ১৮ বছর বয়সী ব্যক্তিগণ শিক্ষানবিশ অথবা অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

.  সর্বনিম্ন ২০ বছর বয়সী ব্যক্তিগণ পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

. কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি পাশ হতে হবে।

শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির পদ্ধতিঃ

শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির জন্য এক জন ব্যক্তিকে নিম্ন লিখিত প্রক্রয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হেবেঃ-

* BRTA (বাৎলাদেশ রোর্ড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি) অফিস কতৃক ছাপানো ফরমটি সংগ্রহ করতেহবে।

* ফরমটি যথাযথ ভাবে পূরণ করতে হবে।

ফরমটিতে যা যা সংযুক্ত করতে হবেঃ

* রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কতৃক প্রদত্ত ফিটনেস সার্টফিকেট। উল্লেখ্য ফরমে রক্তের গ্রূপ লিখতে হবে।

* সদ্য তোলা এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি ও তিন কপি স্ট্যাম্প সাইজ ছবি।

* জাতীয় পরিচয় পত্র/ জন্ম সনদ পত্র/ পাসপোর্টের সত্যায়িত অনুলিপি।

* BRTA কতৃক নির্ধারিত ব্যাংকে (ব্যাংকের নাম www.brta.gov.bd – এই ঠিকানায় পাওয়া যাবে) ফি জমা দানের রশিদ।

* পূরণ কৃত ফরমটি প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র সহ BRTA অফিসে জমা দিতে হবে।

এরপর আবেদনকরীকে BRTA কতৃক নর্ধারিত তিনটি পরীক্ষায় (লিখিত, মৌখিক এবং ব্যবহারিক বা ফিল্ড টেষ্ট) অংশ গ্রহন করতে হয়। পরীক্ষায় উত্তীর্নদের  কে পুনরায় আর একটি নির্ধারিত ফরম পুরণ করতে হয়। এই পূরণ কৃত ফরম, নির্ধারিত ফি এবং প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র অফিসে প্রেরণ করতে হয় স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রাপ্তির জন্য।  এরপর ইলেক্ট্রিক মেশিনের সাহায্যে গ্রহকের ডিজিটাল ছবি, স্বাক্ষর আঙুলের ছাপ নেওয়া। সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর স্ম।র্ট কার্ড গ্রহনের তারিখ গ্রাহককে SMS-এরমাধ্যমে জানানো হয়।

স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্সএর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রঃ

* সঠিকভাবে পূরণ কৃত নির্ধারিত আবেদন পত্র।

* রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কতৃক প্রদত্ত ফিটনেস সার্টফিকেট।

* সদ্য তোলা এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

* জাতীয় পরিচয় পত্র/ জন্ম সনদ পত্র/ পাসপোর্টের সত্যায়িত অনুলিপি।

* পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন।

* BRTA কতৃক নির্ধারিত ব্যাংকে ফি জমা দানের রশিদ।

পরীক্ষা পদ্ধতিঃ

তিনটি ধাপে পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। প্রথমটি লিখিত, দ্বিতীয়টি মৌখিক এবং তৃতীয়টি ব্যবহারিক বা ফিল্ড টেষ্ট। লিখিত পরক্ষায় অংশ গ্রহনকরীকে অবশ্যই রোড সাইন, ট্রাফিক সিগনাল, ট্রাফিক সাইন, ট্রাফিক নিয়মাবলী, মটর যান এবং ইঞ্জিন সম্পর্কে প্রাথমিক জ্ঞান থাকতে হবে। ২৫-৩০ নম্বরের পরীক্ষায় ৬৬% নম্ব পেলে তাকে উত্তীর্ন ধরা হয়। উপরোক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে বাস্তবিক জ্ঞান মৌখিক পরীক্ষর মাধ্যমে যাচাই বাছাই করা হয়। সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হল ব্যবহারিক অংশ। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে তিনটি ধাপ অতিক্রম করতে হয়। জিগ জ্যাগ টেষ্ট, জাম্প টেষ্টএবং রোড টেষ্ট। এই সব পরীক্ষায় উত্তীর্নদের  ড্রাইভিং লাইসেন্স -এর জন্য মনোনীত করাহয়।

অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির নিয়মঃ

প্রথমে গ্রাহককে নির্ধরিত ফি পরিশোধ করতে হবে। এরপর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র BRTA-এর সার্কেল অফিসে জমা দিয়ে স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স -এর জন্য আবেদন করে হবে। কাগজ পত্র সঠিক পেলে একই দিনে গ্রাহকের বায়োমেট্রিক্স গহন করা হয়। সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর স্ম।র্ট কার্ড গ্রহনের তারিখ গ্রাহককে SMS-এরমাধ্যমে জানানো হয়।

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরির নিয়মঃ

গ্রাহককে একটি অতিরিক্ত ব্যবহারিক  পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে হয়।  একমাত্র এই পরীক্ষায় উত্তীর্নরাই  নির্ধরিত ফি, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র BRTA-এর সার্কেল অফিসে জমা দিয়ে স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স -এর জন্য আবেদন করতে পারে। কাগজ পত্র সঠিক পেলে একই দিনে গ্রাহকের বায়োমেট্রিক্স গহন করা হয়। সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর স্ম।র্ট কার্ড গ্রহনের তারিখ গ্রাহককে SMS-এরমাধ্যমে জানানো হয়।
Link1 | Link2